গৃহসজ্জা হোক বা অফিস, শখের ছাদ বাগান বা কোন অনুষ্ঠানের মঞ্চ প্রায় সবখানেই এই মন মাতানো অর্কিডের রয়েছে বিশেষ কদর। আপনি যেখানেই অর্কিড চাষ করুন না কেন অধিক স্থায়িত্বের ফুল ও সতেজ গাছ পেতে আপনার শখের অর্কিডের চাই সঠিক যত্ন। অনেকেই প্রশ্ন করেন কিভাবে নিবেন শখের অর্কিডের যত্ন আর খোঁজ করেন টবের অর্কিডের পরিচর্যা করার সঠিক নিয়ম। তাই অর্কিড প্রেমি মানুষের জন্য এখানে দারুন কিছু টিপস দেয়া হলো যা আপনাকে সহায়তা করবে সঠিক ভাবে অর্কিডের যত্ন নিতে। তাহলে চলুন জেনে নিই কি পরিচর্যায় ভালো থাকবে আমাদের পছন্দের অর্কিড গাছ ও ফুল।

সঠিক ভাবে পানি দেয়া

অর্কিডে উপর থেকে কখনোই পানি দেয়া যাবেনা। কারন এতে করে ফুলের কুড়িতে ও পাতার ফাঁকে পানি জমে থাকে। যা আপনার শখের অর্কিডে পচন ধরাতে সাহায্য করে। যদি কখনো পানি দিতে গিয়ে অর্কিড গাছ সম্পূর্ণ ভিজে যায় তবে সাথে সাথেই একটি পেপার ট্যিসু দিয়ে তা যথা সম্ভব মুছে শুকনো করে নিন।

টবের জমে থাকা পানি অপসারণ

অর্কিড বেশি পানি সহ্য করতে পারেনা। আর বিশেষ করে ফুটন্ত অর্কিড এর টব বা পাত্রে কোনভাবেই অতিরিক্ত পানি জমে থাকতে দেয়া যাবেনা। টবের অতিরিক্ত পানি যাতে খুব সহজেই বেরিয়ে যায় সেদিকে বিশেষ ভাবে লক্ষ্য রাখুন।

ঠান্ডা পানি না দেয়া

অর্কিড এর বেশিরভাগ প্রজাতিই খুব স্পর্শকাতর। খুব ঠান্ডা পানি অর্কিডের মূলের ক্ষতি করে থাকে। সব সময় অর্কিডে সাধারন নাতিশীতোষ্ণ পানি সর্বরাহ করুন। বরফ টুকরো দিয়ে ইন্ডোর প্লান্টে পানি দেয়ার পদ্ধতি অন্তত অর্কিডের ক্ষেত্রে পরিত্যাজ্য।

আরও পড়ুন – ইনডোর প্লান্ট – ঘর সাজাতে গাছ

খাবার সর্বরাহ

সঠিক পরিমানের উপযুক্ত খাবার আপনার অর্কিডের গাছ ও ফুলের জন্য অপরিহার্য। যা অর্কিডের জীবনকাল ও লাবন্য বাড়িয়ে দেবে বহুগুণ। মাসে অন্তত একবার অর্কিডের গাছে খাবার দিন। আপনি যে কোন সুপার শপে অর্কড ফুড কিনতে পাবেন বা অনলাইন শপেও অর্ডার করতে পারেন।

লেগে থাকা ডাল আলাদা না করা

অর্কিডের গোঁড়ার দিকে ডাল গুলো একসাথে চাপাচাপি করে লেগে থাকে। এগুলো অর্কিডের পাওয়ার হাউস বা ব্যাটারির মত কাজ করে। অর্কিডের ভালো বৃদ্ধি আশা করলে কখনোই এইগুলা আলাদা করা যাবেনা।

অর্কিডের সঠিক যত্ন ও পরিচর্যা

প্রচলিত টবের মাটি পরিহার

সাধারণত আমরা যেসব অর্কিড চাষ করি তার বেশিরভাগ প্রজাতিই পরগাছা বা পরজীবী। আর সচরাচর টবে চাষ করার জন্য যে মাটি ব্যবহার করা হয় তা অর্কিডের জন্য উপযোগী নয়। তাই প্রচলিত টবের মাটি পরিহার করাই অর্কিডের জন্য উত্তম। উপরন্তু টবের মাটি অর্কিডের শ্বাসপ্রশ্বাস কার্য সঠিক ভাবে পরিচালনা করে বাঁধা দেয়। এই জন্য নারেকেলের ছোঁবরা, ইটের কোয়া ইত্যাদি বস্তুই উপযুক্ত।

সরাসরি সূর্যের আলোতে না রাখা

অতিরিক্ত তাপমাত্রা অর্কিডের জন্য সুখকর নয়। তাই সরাসরি সূর্যের আলোতে অর্কিডের টব বা পাত্র না রাখাই ভালো। অপেক্ষাকৃত কম তাপমাত্রা আর ছায়াযুক্ত স্থানে জায়গা করে দিন আপনার শখের অর্কিডের।

ফুল না ভেজানো

কিছু কিছু ক্ষেত্রে অর্কিডের পাতা অল্প সময়ের জন্য ভিজিয়ে দেয়া ভালো হলেও কখনোই ফুল ভেজানো অর্কিডের জন্য উপকারী নয়। ফুল ভেজালে তার স্তায়িত্ব কমে যায় এবং এতে করে খুব দ্রুত ফুলে পচন ধরে।

আরও পড়ুন – যে সব ইনডোর প্ল্যান্ট কম যত্নেও বেঁচে থাকে

আদি শিকড় না কাটা

অর্কিডের আদি শিকড় বা এ্যরিয়েল রুট এর জীবন ধারনের জন্য অতীব গুরুত্বপূর্ণ। অনেক অর্কিড এমন মূল দ্ধারা শ্বাসকার্য চালায় আর এটি খুব সাধারন প্রাকৃতিক নিয়ম। তাই এগুলোকে না কাটাই শ্রেয়।

টব বা পাত্র পরিবর্তন

যদিও আপনাকে প্রায়ই অর্কিডের টব বা পাত্র পরিবর্তন করতে হবেনা। সাধারনত অর্কিড দুই বছর একই পাত্রে থাকতে পারে তবে তার বেশি এক পাত্রে রাখা এর সঠিক বৃদ্ধির জন্য প্রতিকূল পরিবেশ তৈরি করে। কারন শিকড় বৃদ্ধির সাথে সাথে এর ভিতরের জায়গার পরিমান কমে আসে। আর অবশ্যই পাত্র পরিবর্তনের সময় মৃত শিকড় কেটে বাদ দিতে হবে।

শেয়ার করুন সবার সাথেঃ

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *