নতুন কারো সাথে পরিচয়ের পর তাকে জানার জন্য সবচেয়ে সহজ ও কার্যকরী পদ্ধতি হচ্ছে প্রশ্ন করা। বিশেষ করে অনেক ছেলেই নিজের সম্পর্কে বলতে ততটা আগ্রহী হয় না। তাই সম্পর্কে জড়ানোর আগে কিছু মৌলিক প্রশ্নের মাধ্যমে আপনি জেনে নিতে পারেন আপনার আকাঙ্ক্ষিত মানুষ সম্পর্কে। এতে করে আপনি সহজে তাঁর সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন আবার বেঁচে যাবেন অনাকাঙ্ক্ষিত ভুল থেকে।

ভালবাসার মানে

আপনার কাছে ভালবাসার মানে কি? এর উত্তরটা খুবই সহজ ও সাধারণ হতে পারে তবু সম্পর্ক শুরু করার আগে তার কাছ থেকেই আরো একবার জেনে নিন। কারণ সবাই একভাবে সম্পর্কের চর্চা করে না। একেক জনের কাছে ভালবাসা মানে একেক রকম, কেউ ভালবাসা বলতে বোঝে শুধুই প্রেম, বিয়ে আর পরিবার। আবার কারও কাছে হয়তো ভালবাসার কোন মানেই নেই আর এমন মানুষের ক্ষেত্রে বেশীরভাগ সময় বলতে শুনা যায় – আমি এসবে বিশ্বাস করি না।

সবচেয়ে বিব্রতকর ঘটনা

আপনার জীবনের সবচেয়ে বিব্রতকর ঘটনাটি কি? এমন প্রশ্নের অনেক উত্তর হতে পারে আবার এমনও হতে পারে কোন বিব্রতকর ঘটনাই নেই তখন আপনি শুধু তার বডি ল্যাঙ্গুয়েজের দিকে খেয়াল রাখুন। যদি দেখেন সহজেই তিনি জীবনের বিব্রতকর কোন ঘটনা অকপটে বলে দিচ্ছেন তবে বুঝে নিন তিনি আপনাকে স্বাভাবিক ভাবে নিয়েছেন। আর যদি লজ্জিত কিংবা ইতস্থত বোধ করে কিংবা বলতে না চায় তবে ধরে নিন তিনি এসব বিষয়ে বলতে আগ্রহী নন।

কখন খুব রাগ হয়?

প্রশ্ন শুনে যে কেউ চমকাতে পারে। আরে ভাই রাগের মত কিছু হলে রাগবো না? কিন্তু আসলে বিষয় সেটা নয়, মানুষের আচরন বুঝতে হলে কখন বা কি ধরনের ঘটনায় সহজে রাগ লাগে এটা জানা দরকার। যে খুব অল্পতে রেগে যায়, খারাপ আচরণ করে, পথাঘাটে অস্বস্থিকর পরিস্থিতি তৈরী করতে পারে তেমন মানুষ সাধারণত খুব দুর্বল ব্যক্তিত্বের হয়ে থাকে। অন্য দিকে রাগ যে সহজে নিয়ন্ত্রন করতে পারে সে মানুষ সমাদৃত হবেই।

প্রিয় কোন ব্যক্তিত্ব

ছেলেরা কিন্তু নিজেদের মধ্যে আইডল লালন করে। হতে পারে সেটা ফ্যাশন, জীবনের লক্ষ্য কিংবা শুধুই ভালো লাগাকে কেন্দ্র করে। জানার চেষ্টা করুন তার প্রিয় ব্যক্তিত্ব কে, তার উত্তর হতে পারে বাবা কিংবা ধর্মীয় কোন ব্যক্তি অথবা কোন সিনেমার নায়ক। এ দিয়ে আপনি সহজেই তার অন্যসব ভালো লাগা গুলো সহজেই বুঝতে পারবেন।

আপনার কয়টি সম্পর্ক ছিলো?

এমন প্রশ্নের উত্তর মিথ্যা হওয়ার আশংকাই বেশি সুতরাং কৌশলে জিজ্ঞেস করুন। যদি সংখ্যাটা কম হয় তবে বুঝে নিন তিনি সম্পর্কের ব্যাপারে বেশ সচেতন ও সিরিয়াস। আর যদি সংখ্যাটি বড় হয় তবে বুঝে নিন তিনি আসলে সম্পর্ক করা, টিকিয়ে রাখা বা প্রতিশ্রুতি রাখা ইত্যাদির ব্যাপারে মোটেও সিরিয়াস নন।

শেষ সম্পর্ক ভাঙ্গার কারণ

সম্পর্কগুলো সবার কাছেই অনেক আকর্ষপ্নীয় হয়ে থাকে আবার ফেলে আসা সম্পর্কটির অনেক বাজে অভিজ্ঞতাও অনেকের থাকতে পারে। কিন্তু ভাল সময়টুকুর জন্য পারস্পরিক শ্রদ্ধা থাকা অনেক জরুরী। যদি পূর্বের সম্পর্ক ভাঙ্গার কারণ হিসাবে তিনি যদি শুধুই পার্টনারের উপর সমস্ত দোষ চাপিয়ে দেন তবে বুঝে নিন তিনি নিজের ভুল লুকাচ্ছেন কিংবা নিজেকে মহৎ দেখানোর চেষ্টা করছেন।

আরও পড়ুন – ফেসবুকে সঙ্গী পাওয়ার উপায়

যদি এক্স গার্লফ্রেন্ড ফিরে আসতে চায়?

এটা খুবই জরুরী প্রশ্ন। আমাদের দেশের মানুষের মন মানসিকতার হিসাবে আপনি কখনই আশা করবেন না যে আপনিই তার জীবনে প্রথম প্রেমিকা হতে যাচ্ছেন, এটি খুব অস্বাভাবিক। একজন প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষ তার জীবনে অনেক সম্পর্ক পেরিয়ে আসতে পারে, তাই এটা আগে থেকেই মেনে নিন। এখন আপনি যে প্রশ্নটি করছেন তার উত্তরে তিনি কি বলছেন খেয়াল করুন। যদি বলেন ফিরে যাবেন তাহলে আর কোন কথাই থাকে না। আর যদি বলেন তিনি পুরোনো সম্পর্কটি থেকে পুরোপুরি সরে এসেছেন কিংবা তিনি আর কারও কথা ভাবছেন এর মানে হচ্ছে আপনার জন্য পুরো ফ্লোরই প্রস্তুত।

কী ধরণের প্রশ্নের উত্তর করেন না?

এই প্রশ্নটি সহজেই আপনাকে নিয়ে যাবে তার একান্ত ব্যক্তিগত বা ক্ষত আছে এমন কোন স্মৃতির দ্বারে। তিনি যদি প্রশ্নের উত্তর দেন তাহলে তো জেনেই গেলেন এমন দরকারি বিষয়টি। কিন্তু খুব সম্ভাবনা আছে প্রশ্নটি এড়িয়ে যাবার। তাই সাবধানে প্রশ্ন করুন।

আর্থিক অবস্থা

এই একটি প্রশ্ন আপনার আরো অনেক না বলা প্রশ্নের উত্তর দিয়ে দেবে। টাকাপয়সার কথা বলে হীনমন্যতায় ভোগার বা বিব্রত বোধ করার কিছু নেই। একজন মানুষ জীবন সম্পর্কে কতটা সিরিয়াস তা বোঝা যায় তার আর্থিক অবস্থা বা ভবিষ্যতে এই বিষয়ে কি করবেন সেই পরিকল্পনার মাধ্যমে। নিজের পকেটের খবর কিন্তু আমরা সহজেই সবার সাথে শেয়ার করি না। যদি ভদ্রলোক আপনার সাথে শেয়ার করেন তাহলে বোঝা গেল আপনাকে যথেষ্টই গুরুত্ব দিচ্ছেন বা কাছের ভাবছেন।

প্রশ্নগুলো বোর্ড পরীক্ষার মত মনে হলেও উত্তর পেতে প্রয়োজনে এভাবে সরাসরি জিজ্ঞেস না করে কৌশলের আশ্রয় নিতে পারেন কারণ সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য উত্তরগুলো ঠিকঠাক মত পাওয়া আপনার জন্য বেশ জরুরী।

শেয়ার করুন সবার সাথেঃ

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *