আমাদের প্রতিদিনের চলার পথে আমরা অনেক প্রতীক বা চিহ্নের মুখোমুখি হই। অধিকাংশ প্রতীক বা চিহ্নের সৃষ্টির কারণ এবং অর্থ আমাদের অজানা। যুগ যুগ ধরে চলে আসা এসব প্রতীক একদিকে যেমন অতীতের স্মারক বহন করে তেমনি বর্তমান কালেও এসবের ব্যবহার আমাদের জীবনে প্রভাব বিস্তার করে আছে। তেমনি কিছু প্রতীক বা চিহ্ন নিয়েই চারপাশের আজকের এই আয়োজন। চলুন ঘুরে আসি জানা অজানা সেই সাংকেতিক অধ্যায় থেকে।

অ্যাস্প্লিপিয়াসের লাঠি

the-Rod-of-Asclepius

পৌরাণিক কাহিনী থেকে জানা যায় দেবতা অ্যাপোলো এবং রাজকুমারী কোরোনিসের পুত্র অ্যাস্প্লিপিয়াস গ্রীক মেডিসিনের দেবতা ছিলেন। তাঁর মানুষকে সুস্থ করা এমনকি মৃত ব্যক্তিকে জীবিত করার ক্ষমতাও ছিল। আর প্রাচীন গ্রীকরা সাপকে পবিত্র হিসাবে মনে করতো তাই অ্যাস্প্লিপিয়াসের লাঠিটি সাপের চারপাশে আটকে থাকা সাপের প্রতীক বর্তমানেও চিকিৎসা সেবার সাথে সম্পর্কিত প্রতিষ্ঠানে ব্যবহৃত হচ্ছে।

মাল্টিস ক্রস

multicross

মাল্টিস ক্রস প্রতীকটি মাল্টীয় দ্বীপপুঞ্জের মাল্টা নাইটস এর সাথে সম্পর্কযুক্ত। ১৫৩০ থেকে ১৬৯৮ সাল পর্যন্ত মাল্টা নাইটসদের অস্তিত্ব বিরাজমান ছিল। মাল্টিস ক্রসের আটটি বিন্দু মাল্টা নাইটদের আটটি অঙ্গীকারকে নির্দেশ করে। আটটি অঙ্গীকার হচ্ছে – ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করা, সদা সত্যে সঙ্গে বাস করা, বিশ্বাস অটুট রাখা, নম্রতার সাথে শুভেচ্ছা জানানো, দয়াবান হওয়া, সুখী ও আন্তরিক হওয়া, একজনের পাপে অন্যজন অনুতাপ করা এবং নিপীড়ন সহ্য করা।

নিবন্ধিত ট্রেডমার্ক

Trade-Mark

আমরা সবচেয়ে বেশি যে লোগো দেখে অভ্যস্ত তা হচ্ছে কোন নামের পাশে উপরের কোণায় একটি বৃত্তের মধ্যে R লিখা। আর এর মানে হল উক্ত নাম বা লোগো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কতৃক অনুমোদিত ও নিবন্ধিত একটি ট্রেডমার্ক।

হাতুড়ি ও কাস্তে

communism

সোভিয়েত ইউনিয়নের প্রতীকের মধ্যে হাতুড়ি ও কাস্তে বহুল প্রচলিত একটি প্রতীক। বর্তমানে এই হাতুড়ি এবং কাস্তে সারা বিশ্বে শ্রমিক-কৃষক শ্রেনীর প্রতিনিধিত্বের স্মারক হিসাবে আবির্ভুত হয়েছে। তবে ইউরোপীয়ান ধর্মীয় মতবাদ অনুসারে হাতুড়ি আক্রমণাত্মক পুরুষ এবং কাস্তে মৃত্যুর প্রতিনিধিত্ব করে।

প্রবেশের চিহ্ন

disable

হুইলচেয়ারে বসা একজন মানুষের প্রতিকৃতি ব্যবহার করে ১৯৬৮ সালে সুসানে কইফোয়েড এই প্রতীকটি নকশা করেন। যা হুইলচেয়ার ব্যবহারকারীদের জন্য উন্নত প্রবেশ পথ নির্দেশ করতে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। বর্তমানে অন্যান্য শারীরিক অক্ষমতা নির্দেশ করতেও এই প্রতীক ব্যবহার করা হয়।

পাওয়ার প্রতীক

power-button

শুরুতে সুইচের এক প্রান্তে অন এবং অন্য প্রান্তে অফ লেখা থাকলেও পরবর্তীতে সুইচের অন/অফ শব্দগুলোকে ১ এবং ০ প্রকাশ করা শুরু হয়। আর শুধুমাত্র একটি পাওয়ার বোতামে অন বা অফ প্রকাশ করতে ১ এবং ০ একে অপরের উপর আরোপিত হওয়ার এই প্রতীক বিপুল পরিচিতি লাভ করে।

গোলাপী ফিতে

pink-ribbon

আন্তর্জাতিক ভাবে ১৯৭৯ সাল থেকে স্তন ক্যান্সারের প্রতীক হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। এই গোলাপী ফিতে নারীদের স্বাস্থ্য, জীবনীশক্তি এবং নারীর ক্ষমতায়নের স্বরূপ প্রকাশ করে।

ব্লুটুথ প্রতীক

bluetooth

প্রাচীন ডেনমার্কের শাসক হেরাল্ড ব্ল্যাটান্ড ব্লুবেরী ফলের প্রতি বিশেষ ভালোবাসার জন্য ‘দ্য ব্লু টুথ’ নামে পরিচিত ছিলেন। বর্তমানের ব্লুটুথ প্রতীকটি মূলত দুটি স্ক্যান্ডিনেভিয়ানের বর্ণমালার অক্ষরের সমন্বয়ে গঠিত বি অক্ষর রাজা হেরাল্ড ব্ল্যাটান্ড নামের আদ্যক্ষর এবং এটিই বর্তমানের বহুল প্রচলিত ব্লুটুথের প্রতীক।

বহির্গমন চিহ্ন

Entry

বহির্গমন চিহ্ন আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত একটি প্রতীক। সাধারণত এই চিহ্নটি জরুরী অবস্থায় বাহিরে যাওয়ার পথ নির্দেশ করে। তাছাড়া ১৯৮৫ সালে আন্তর্জাতিক ভাবে ট্রাফিক লাইটে সবুজ আলোয় ‘গমন’ নির্দেশ করতে এটি ব্যবহৃত হচ্ছে।

মাথার খুলি এবং ক্রস কঙ্কাল

Danger

একটি মানব মাথার খুলির নিচে ক্রসের ন্যায় রাখা দুটি কঙ্কাল দ্বারা তৈরি এই প্রতীক মধ্যযুগে মৃত্যুর প্রকাশ করতে ব্যবহার করা হতো। পরবর্তীতে এটি জলদস্যুদের পতাকায় ব্যবহার শুরু হয়, আর বর্তমানে এই চিহ্ন বিষাক্ত বা বিপজ্জনক বুঝাতে সতর্কতামূলক নির্দেশনা হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

চেক বা টিক চিহ্ন

check-right

কোন কিছু সঠিকভাবে যাচাই করা বা নিশ্চিত করা হয়েছে এমন প্রকাশ করতেই চেক বা ঠিক চিহ্নের ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। প্রাচীন রোমান সাম্রাজ্যের সময় থেকে ঠিক চিহ্নের ব্যবহার শুরু হয় বলে মনে করা হয়। আবার অনেকে মনে করেন veritas যার অর্থ ‘সঠিক’ এবং এই শব্দের সংক্ষিপ্ত রূপ ‘V’ দ্রুততার সাথে লিখতে লিখতে বর্তমান ঠিক বা চেক চিহ্নের আবির্ভাব ঘটে।

হার্ট চিহ্ন

heart

হার্ট চিহ্ন বর্তমানে ভালোবাসা, আবেগ এবং সম্পর্ক প্রকাশের চিরন্তন প্রতীক হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

ক্রিসেন্ট

crescent

ইসলামিক কোন কিছু নির্দেশ করতে ক্রিসেন্ট চিহ্নের ব্যাপক দেখা গেলেও এই চিহ্নের সাথে কোন একক ধর্মের সংশ্লিষ্টতা নেই। অন্যান্য ধর্মের প্রতীকেও এর ব্যবহার লক্ষ্য করা যায়। বলা যায় মানব ইতিহাসের প্রাচীনতম প্রতীকের মধ্যে ক্রিসেন্ট অন্যতম।

ভি-চিহ্ন

v-sign-peace

হাতের তর্জনী এবং মধ্যম আঙ্গুল দ্বারা প্রকাশিত ভি-চিহ্ন শান্তি, বিজয় এবং সাফল্য প্রকাশে বহুল ব্যবহৃত একটি প্রতীক।

স্বস্তিকা চিহ্ন

Sostika

পশ্চাত্য বিশ্বের স্বস্তিকা চিহ্ন ফ্যাসিবাদের সমার্থক জার্মানির নাৎসি বাহিনীর প্রতীক হিসাবে পরিচিত। কিন্তু হিন্দু, বৌদ্ধ এবং জৈন ধর্মাবলম্বিরা হাজার বছর ধরে স্বস্তিকা চিহ্ন কল্যানের প্রতীক হিসাবে ব্যবহার করে চলছে।

পুনর্ব্যবহার প্রতীক

recycle

১৯৭০ সালের এপ্রিল মাসে প্রথম আর্থ দিবসে পুনর্ব্যবহার বা রিসাইক্যাল প্রতীকটির জন্ম হয়। পরিবেশের সাথে সংশ্লিষ্ট শিল্প এবং দ্রব্য পুনর্ব্যবহার যোগ্য কিনা তা বুঝাতে এই প্রতীক ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

হাসির প্রতীক

smily

১৯৭০ সালে প্রথম হাসির প্রতীক বা স্মাইলি তৈরি করা হয়। একটি নিখুঁত বৃত্তের মধ্যে একটি হাসিমাখা মুখ, দুটি চোখ এবং সূর্য দ্বারা অনুপ্রাণিত হলুদ পটভূমি এই প্রতীককে দিয়েছে অনন্যতা।

পুরুষের প্রতীক

man

এই চিহ্নটি মঙ্গলের প্রতীক হিসাবেও সুপরিচিত। মঙ্গলগ্রহ রোমান দেবতার যুদ্ধের ঢাল এবং বর্শার অস্তিত্ব প্রকাশ করে।

শান্তির প্রতীক

peace

১৯৫৮ সালের ফেব্রুয়ারী মাসের ১ তারিখে পরমাণু যুদ্ধের বিরুদ্ধে সরাসরি অ্যাকশন কমিটির লোগো হিসাবে শান্তিরক্ষী জেরাল্ড হার্বার্ট হল্টম এই শান্তির প্রতীক টি ডিজাইন করেন। ১৯৬০ দশকে হিপ্পি সম্প্রদায় প্রতীকটি গ্রহণ করে সারা বিশ্বে জনপ্রিয় করে তুলে।

নারীর প্রতীক

woman

জ্যোতির্বিদ্যায় শুক্র গ্রহ বুঝাতে এবং নারীদের প্রতিনিধিত্ব প্রকাশ করতে এই প্রতীক ব্যবহার করা হয়। এই প্রতীকের বৃত্ত মহাবিশ্ব এবং নারীদের গর্ভ প্রকাশ করে। বৃত্তের নীচে অবস্থিত ক্রস প্রেমঅবস্থা নির্দেশ করে।

ওকে চিহ্ন

ok

ওকে বা ঠিক আছে চিহ্নটি দেশে দেশে ভিন্ন অর্থ প্রকাশ করে। যেমন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ওকে চিহ্নটি কোন কিছু বা কেউ ঠিক আছে বুঝাতে ব্যবহৃত হলেও কিছু ইউরোপীয় দেশে এটি আপত্তিকর অঙ্গভঙ্গি হিসেবে মনে করা হয়। আবার ভূমধ্যসাগরীয় এবং দক্ষিণ আমেরিকান দেশগুলিতে এই চিহ্নটি মলদ্বারকে প্রতীকী নির্দেশ করে।

পাজল রিবন বা ধাঁধাঁ ফিতে

pazle-rebbon

ধাঁধা ফিতে ১৯৯৯ সাল থেকে অটিজম সচেতনতার একটি সর্বজনীন প্রতীক হিসাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। অটিজমে আক্রান্ত ব্যক্তিরা যেমন শারীরিক জটিলতায় থাকে তেমনি এই জটিলতাকে এই প্রতীকে প্রতিফলিত করা হয়েছে। প্রতীকের বিভিন্ন রং ও আকার মানুষ এবং পরিবারগুলির বৈচিত্র্যকে নির্দেশ করে।

(লিস্টটোয়েন্টি ফাইভ থেকে অনুদিত)

শেয়ার করুন সবার সাথেঃ

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *